Header Ads


moving image by marquee html code

ক্ষুব্ধ মাহির প্রতিবাদ

‘বস টু’ ছবির প্রচারণায় দিন দুয়েক আগে বাংলাদেশে এসেছেন কলকাতার অভিনেতা জিত্। ছবিটি যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া ও জিতের প্রতিষ্ঠান জিত্জ ফিল্ম ওয়ার্কস। এবারসহ এর আগে যতবারই সিনেমাসংশ্লিষ্ট কাজে জিত্ এ দেশে এসেছেন, ততবারই চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্টদের ইতিবাচক সাড়া পেয়েছেন। বিশেষ করে গণমাধ্যমে প্রত্যেকবারই আলোচনায় থাকেন তিনি। মোটকথা, সিনেমার প্রচারণা ও নিজের তারকাখ্যাতি আরো সুবিস্তৃত করতে কোনো বেগই পাননি এ তারকা। শুধু তিনি কেন, ভারতীয় অন্য চলচ্চিত্রশিল্পীদের ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য।
বাংলাদেশের চলচ্চিত্র মহলে ভারতীয় অভিনেতা-অভিনেত্রীদের এমন ইতিবাচক অবস্থান বিদ্যমান থাকলেও এ দেশের অভিনেতা-অভিনেত্রীদের বেলায় ভারতীয় চলচ্চিত্রমহলের অনেকেই যে নেতিবাচক অবস্থান নেন, সে অভিযোগ এর আগেও বহুবার এসেছে। কিন্তু এবার প্রকাশ্যে এ ব্যাপারে মুখ খুললেন অভিনেত্রী মাহিয়া মাহি।
ঘটনার শুরু ‘তুই শুধু আমার’ ছবির শুটিং সেটে। যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনার এ ছবিটির শুটিংয়ে এখন সেখানেই অবস্থান করছেন মাহি। মাহির অভিযোগ, সেখানে তিনি শুটিং করতে গিয়ে ভারতীয় কয়েকজন সহকর্মীর খারাপ আচরণের সম্মুখীন হয়েছেন। অবশ্য এ নিয়ে মাহি তার ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট শেয়ার করে নিজের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। ফেসবুকে দেয়া মাহির স্ট্যাটাসটি এমন: “পারলে আমাকে ক্ষমা করে দিও মা (বাংলাদেশ)। আমি এমন কিছু ভারতীয়দের (সবাই না, শুধুমাত্র গুটি কয়েক) সঙ্গে কাজ করছি, যারা কথায় কথায় তোমাকে ছোট করার হিম্মত দেখায়। কিন্তু বিশ্বাস করো, আমি এবং আমার মতো আরো কয়েকজন থাকতে তোমাকে ছোট করার ক্ষমতা কারো হবে না। কোনো দিন না। তুমি (বাংলাদেশ) আর ‘মা’ থাকবে মাথার ওপরে। কারণ তোমরা দুজনেই আমার ‘মা’।”
বিষয়টি নিয়ে এর পর টকিজের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয় তুই শুধু আমার ছবির বাংলাদেশ অংশের পরিচালক অনন্য মামুনের সঙ্গে। যিনি এ মুহূর্তে লন্ডনে অবস্থান করছেন। তার কাছে শুরুতেই জানতে চাওয়া হয়, মাহির ফেসবুক স্ট্যাটাস সম্পর্কে তিনি কতটা অবগত? তার উত্তর: ‘দেখুন, ফেসবুকের স্ট্যাটাস একজন মানুষের ব্যক্তিগত বিষয়। এ ব্যাপারে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না।’ এর পর তাকে বলা হয়, যৌথ প্রযোজনার ছবি নিয়ে বাংলাদেশ অবজ্ঞার শিকার হচ্ছে— এমন কথা খোদ এফডিসিসংশ্লিষ্টদের। এর মধ্যে মাহির সঙ্গে এ ধরনের আচরণ। বিষয়টি নিয়ে ভাববার অবকাশ তো আছে নিশ্চয়ই? মামুন বলেন, ‘মাহি তার স্ট্যাটাসে কী বলেছে, সেটা সম্পর্কে আমি পুরোপুরি অবগত নই। তবে যদি মাহির অভিযোগ সত্যি হয় তাহলে আমি কখনই আমার দেশের শিল্পীদের সঙ্গে এমন বাজে ব্যবহার মানব না। আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, যৌথ প্রযোজনার ছবি পরিচালনা করলেও আমি আমার দেশেরই পক্ষে।’
উল্লেখ্য, তুই শুধু আমার ছবির শুটিং করতে লন্ডন যাওয়ার আগে যৌথ প্রযোজনার ছবিতে অভিনয় নিয়ে টকিজের সঙ্গে কথোপকথনে মাহি বরাবরই বলেছিলেন, ‘বাংলাদেশের সিনেমার প্রসার হবে, ব্যবসা বাড়বে— শুধু এই যুক্তিতেই যৌথ প্রযোজনার ছবিতে অভিনয় করছি। এর বাইরে আর কোনো কারণ নেই।’ এখন দেখা যাক, বাংলাদেশের সিনেমা যাদের নিয়ন্ত্রণে, তারা আদৌ মাহির সঙ্গে ভারতীয় কলাকুশলীদের এমন আচরণে কেমন প্রতিক্রিয়া দেখান বা ব্যবস্থা নেন।

No comments

Thanks you for comment

Powered by Blogger.