Header Ads


moving image by marquee html code

নারায়ণগঞ্জে আইনজীবী ফোরামের কমিটি থেকে ১৪৪ জনের পদত্যাগ

সদ্য ঘোষিত নারায়ণগঞ্জ জেলা আইজীবী ফোরামের কমিটি থেকে ২৮৭ জনের মধ্যে ১৪০ জন পদত্যাগ করেছেন। এছাড়া এ কমিটিকে ‘অগণতান্ত্রিক ও বে-আইনি’ আখ্যায়িত করে তা বাতিলের দাবি জানিয়েছেন বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের একাংশ। রবিবার (১৮ জুন) দুপুর ২টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের হানিফ খান মিলনায়তনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম নারায়ণগঞ্জ জেলার ব্যানারে সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানান তারা। এসময় কমিটি বাতিল ও কমিটি থেকে পদত্যাগের জন্য ১৪০ আইনজীবীর স্বাক্ষরিত পদত্যাগপত্র উপস্থাপন করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন ও নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী সাখাওয়াত হোসেন খানের কর্মকাণ্ডের বিষোদগার করেন তারা।
এর আগে সরকার হুমায়ূন কবিরকে সভাপতি ও খোরশেদ আলম মোল্লাকে সেক্রেটারি করে গত ৭ জুন ২৮৭ জনের কমিটির অনুমোদন দেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। ওই কমিটি ঘোষণার পর থেকেই শুরু হয় মিশ্র প্রতিক্রিয়া।
আইনজীবী ফোরামের সাবেক সভাপতি আব্দুল বারী ভূইয়া তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের তথাকথিত কমিটি ঘোষণা করেছেন। ২৮৭ জনের কথিত কমিটিতে আওয়ামী লীগের আইনজীবীদের নাম রয়েছে। ইতোমধ্যে আমরা ১৪০ জন লিখতভাবে কমিটি প্রত্যাখান করেছি।’
সংবাদ সম্মেলনে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম নারায়ণগঞ্জ জেলার সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেনের বিষোদাগার করে নেতারা বলেন, ‘আইনজীবী ফোরাম থেকে তাকে নমিনেশন না দেওয়ায় সাখাওয়াত দলের প্রার্থীর বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের পক্ষে নির্বাচন করে। নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির ২০১৬-১৭ নির্বাচনে উত্তরা ক্লাবে এমপি শামীম ওসমানের সঙ্গে মিটিং করে মেয়র হওয়ার লোভে নারায়ণগঞ্জ বারের নির্বাচন বিক্রি করে দেয়। যার ফলে বার নির্বাচনে বিএনপির শোচনীয় পরাজয় হয়। ৭ খুন মামলায় ৯ জন আসামিকে চার্জশিট থেকে বাদ দেওয়ার জন্য বাদীপক্ষে নারাজী পিটিশন না দিয়ে মোট অংকের টাকা ঘুষ নিয়েছে সাখাওয়াত। নারাজি পিটিশন জমা না দেয়ার পেছনেও তার অনেক কারসাজি ছিলো। এছাড়া সাখাওয়াতআইনজীবী সমিতির সভাপতি থাকা অবস্থায় সাত খুনের ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নূর হোসেনের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা ও বনভোজনের জন্য ২৫টি বাসের সুবিধা নেয়।
নেতারা আরও বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচনে সাখাওয়াত বিএনপির লোকদের কাছ থেকে মোট অংকের চাঁদা নিয়েছে।’ তাই অবিলম্বে সাখাওয়াত হোসেন খানকে বিএনপির সব দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেওয়ার জন্য খালেদা জিয়ার প্রতি আহ্বান জানান তারা।
এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে তারা দাবি জানান, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন গত ৮ বছর ধরে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামকে কুক্ষিগত করে মহাসচিবের পদ আকড়ে ধরে রয়েছেন। তার সেচ্ছাচারিতার কারণে ৮ বছর ধরে ফোরামের কোনও কাউন্সিল হয় না। মাহবুবউদ্দিন খোকনের একক স্বাক্ষরে কমিটি অনুমোদন দেওয়ার ক্ষমতা নেই। ২৮৭ জনের কথিত কমিটিতে আওয়ামী লীগের আইনজীবীদের নামও রয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সাবেক সভাপতি আব্দুল ভারী ভূইয়া, আইনজীবী ফোরামের নতুন কমিটির উপদেষ্টা ও বিগত কমিটির সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ খান ভাষানী, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আজীজুর রহমান মোল্লা, বোরহান উদ্দিন সরকার, শামসুজ্জামান খোকা, ওমর ফারুক নয়ন, সিরাজি রাসেল, শরীফুল ইসলাস শিপলুসহ আরও অনেকে।

No comments

Thanks you for comment

Powered by Blogger.