Header Ads


moving image by marquee html code

সোনারগাঁওয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ আহত-১০

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার মামরকপুর এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রোববার দুপক্ষের সংঘর্ষে টেঁটাবিদ্ধসহ ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদেরকে স্থানীয় ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় আবারো রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকায় পুলিশী টহল জোরদার করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার মামরকপুর এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রোববার দুপক্ষের সংঘর্ষে টেঁটাবিদ্ধসহ ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদেরকে স্থানীয় ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় আবারো রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকায় পুলিশী টহল জোরদার করা হয়েছে।
জানা গেছে, উপজেলার বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ইসমাইল হোসেন এর ছেলে রকি’র সাথে ওই ইউনিয়নের মামরকপুর গ্রামের গাজী আবু তালেবের ছেলে গাজী আওলাদের এলাকার আধিপত্য নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জের ধরে রোববার বিকেলে রকি ও তার লোকজন দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে গাজী আওলাদ ও তার লোকজনের উপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। এতে গাজী আওলাদ, গাজী আরমান, ও মোরসালিনসহ ৫জন আহত হয়। এদের মধ্যে মোরসালিনকে টেঁটাবিদ্ধ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
অপরদিকে পাল্টা হামলার শিকার হয়ে রকি গ্রুপের আবু তাহের, বরকতুল্লাহ ও ওয়াজ করনী ওরফে আক্কু সহ ৫ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে আবু তাহেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে গাজী আওলাদ জানান, দীর্ঘদিন যাবত রকি এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। এমন কি সে অবৈধভাবে মেঘনা নদী থেকে নিয়মিত বালু উত্তোলনের সাথে জড়িত। আমরা এসব ব্যাপারে প্রতিবাদ করলে রকি ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের উপর হামলা চালায়। গতকাল রবিবার বিকেলে কোন কারণ ছাড়াই সে ও তার বাহিনী আমাদেরকে পিটিয়ে আহত করেছে।
সোনারগাঁও থানার ওসি(তদন্ত) হেলালউদ্দিন জানান, সংঘর্ষের ঘটনা শোনার পর তাৎক্ষণিক ভাবে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আছে। থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

No comments

Thanks you for comment

Powered by Blogger.